শিরোনাম
ঢাকা-১৮ আসনকে স্মার্ট আসন হিসেবে গড়তে কাজ করে যাচ্ছি: খসরু চৌধুরী এমপি ড.কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম এলডিপির কার্যালয়ে জনগণের উদ্যেশে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণখানে রিকশাচালকদের মাঝে পানি বিতরণ করলেন খন্দকার সাজ্জাদ তীব্র তাপপ্রবাহে রিকশাচালকদের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ ১০ দিনে তুরাগ থানার পরিবর্তনের ছোঁয়া কালীগঞ্জের নাগরিতে সন্ত্রাসীদের তান্ডব উত্তরায় প্রকৌশলীকে পিটিয়ে হত্যা, মূল হোতা নাজমুল ধরাছোঁয়ার বাইরে উত্তরায় বফেট লঞ্চের শুভ উদ্বোধন উত্তরা ৪৭ নং ওয়ার্ড এ খন্দকার সাজ্জাদ হোসেনের ঈদের নামাজ আদায় উত্তরখানে খসরু চৌধুরী এমপির ঈদ উপহার বিতরণ
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১১:০০ পূর্বাহ্ন

১০ দিনে তুরাগ থানার পরিবর্তনের ছোঁয়া

তরিক শিবলী / ৮২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৪

তরিক শিবলী : গত ৮ এপ্রিল রাজধানী উত্তরায় তুরাগ থানার নতুন ওসি মোহাম্মদ মোঃশেখ সাদিক যোগদান করেন। মাত্র ১০ দিনে থানার সেবামূলক বিষয়গুলো করেছেন ত্বরান্বিত, এনেছেন গতি। সাধারণ মানুষ থানায় বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে জিডি করে থাকে কিন্তু সময়ের সাথে সময় গড়িয়ে মাস পার হলেও জিডিগুলো আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে নিষ্পত্তি হয় না। যার ফলশ্রুতিতে সাধারন মানুষ থানা পুলিশের প্রতি মে চিবাচক ধারণা হতে শুরু করে। জিডিগুলোর শেষ ঠিকানা হয় কাগজ আর কলমে। এমনটাই সাধারণ মানুষ মনে করে।
সম্প্রতি সময়ে তুরাগ থানা নতুন ওসি মোঃ শেখ সাদিক মাত্র ১০ দিনে ১০০ টি নতুন জিডির মধ্যে ৮০টি জিডি নিষ্পত্তি করতে সক্ষম হয়েছেন। এই স্বল্প সময়ের মধ্যে মামলা হয়েছে দশটি এবং আসামি গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তুরাগ থানার এক ব্যবসায়ী বলেন, আমি শুনেছি কিছুদিন আগে নতুন ওসি এসেছে উনার সাথে আমার এখনো দেখা হয়নি তবে এলাকারআইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অনেক পরিবর্তন দেখে বুঝতে পেরেছি তিনি একটু ব্যতিক্রমী হবেন।
এখন পুলিশ টহল দিনরাত সব সময় দেখা যায়। কিশোর গ্যাং আড্ডার জায়গাগুলো এখন পুলিশের নজরদারির মধ্যে আছে, ছিনতাই এর পরিমাণ কমতে শুরু করেছে এ এলাকায় প্রতিদিনই চার-পাঁচটা ছিনতায়ের ঘটনা ঘটতো এমনটাই রেকর্ড ছিল। দৌরাত্ব কমেছে ছিনতাইকারী, মাদকব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের। দশ দিনে এত পরিবর্তন না দেখলে বিশ্বাসী করা যাবে না।
এই বিষয়গুলো নিয়ে ওসি মোঃ শেখ সাদিক এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মানুষের আয়ু কাল খুব একটা বেশি না এর মধ্যে যার যার জায়গা থেকে সে যদি তার নিজ দায়িত্ব সঠিকভাবে ঈমানী দায়িত্ব হিসেবে পালন করে তবেই সমাজ সুন্দর হবে এবং সে ভালো কাজের মাধ্যমে মানুষের অন্তরে বেঁচে থাকবে চিরকাল। আমি যে চেয়ারটায় বসে আছি এই জায়গা থেকে আমার বিন্দু পরিমাণ অন্যায় কাজের ছাড় দেওয়ার সুযোগ নাই। আমি সাধারণ মানুষের সেবক। তাই তাদের থানায় যে সকল কাজ আছে তা দ্রুত সম্পন্ন করার দায়িত্ব আমার।আমি আমার সিনিয়রদের সাথে কথা বলে তাদের পরামর্শে অত্র এলাকার চুরি, ছিনতাই, মাদক সেবন,মাদক ব্যবসায়ী, কিশোর গেং এ ধরনের অপরাধগুলোকে নিবারণ করতে চাই।
প্রসঙ্গত সাদামাটা মনের মানুষ ওসি মোঃ শেখ সাদিক সাধারণ ও সহজ সরল জীবন যাপন করতেই তিনি পছন্দ করেন। মিষ্টিভাষী এই ব্যক্তির পূর্বের কর্মস্থল, থানাতে ও রয়েছে ব্যাপক সুনাম। দুই কন্যা ও স্ত্রী নিয়ে স্বাভাবিক ও সাধারণ জীবন যাপন করাই তার পছন্দ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ