শিরোনাম
ঢাকা-১৮ আসনকে স্মার্ট আসন হিসেবে গড়তে কাজ করে যাচ্ছি: খসরু চৌধুরী এমপি ড.কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম এলডিপির কার্যালয়ে জনগণের উদ্যেশে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণখানে রিকশাচালকদের মাঝে পানি বিতরণ করলেন খন্দকার সাজ্জাদ তীব্র তাপপ্রবাহে রিকশাচালকদের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ ১০ দিনে তুরাগ থানার পরিবর্তনের ছোঁয়া কালীগঞ্জের নাগরিতে সন্ত্রাসীদের তান্ডব উত্তরায় প্রকৌশলীকে পিটিয়ে হত্যা, মূল হোতা নাজমুল ধরাছোঁয়ার বাইরে উত্তরায় বফেট লঞ্চের শুভ উদ্বোধন উত্তরা ৪৭ নং ওয়ার্ড এ খন্দকার সাজ্জাদ হোসেনের ঈদের নামাজ আদায় উত্তরখানে খসরু চৌধুরী এমপির ঈদ উপহার বিতরণ
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৪:১৯ অপরাহ্ন

শরিফদের সরিয়ে মসনদে অধিকাংশে জারদারি পরিবার

রিপোটারের নাম / ১৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ৩০ মার্চ, ২০২৪

পাকিস্তানে চলতি বছরের নির্বাচন ঘিরে চলেছে নানা নাটকীয়তা। ফলাফলের পর জোট সরকার নিয়ে কম পানি ঘোলা হয়নি। শেষমেশ নানা শর্তে একত্রে সরকার গঠনে সম্মত হয়েছিল পাকিস্তান মুসলিম লীগ (পিএমএল-এন) এবং পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি)।

জোট সরকার গঠিত হলেও মুসলিম লীগের শরিফদের সরিয়ে মসনদের অধিকংশ অংশ জুড়ে এখন পিপিপি’র জারদারি পরিবার। সর্বশেষ এই দলে যোগ দিয়েছেন নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট আসিফ আল জারদারির কনিষ্ঠ কন্যা আসিফা ভুট্টো জারদারি (৩১)। শুক্রবার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পার্লামেন্ট সদস্য (এমপি) নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। জিও টিভি।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পরই দেশটির ফার্স্টলেডি কে হবে তা নিয়ে আলোচনা চলছিল। সচরাচর ফার্স্টলেডির দায়িত্ব সামলান প্রেসিডেন্টের স্ত্রী। কিন্তু জারদারির স্ত্রী ও পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো বেঁচে নেই। ২০০৭ সালে এক সমাবেশে তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এরপর আর বিয়ে করেননি জারদারি। এর পরই গুঞ্জন চলতে থাকে জারদারির সবচেয়ে ছোট মেয়েকেই এ পদ দেওয়া হবে তাই, মায়ের অবর্তমানে বাবার পাশে থেকে ফার্স্টলেডির দায়িত্ব পালন করছেন আসিফা। বাবা আসিফ আলি জারদারির ছেড়ে দেওয়া শহিদ বেনজিরাবাদ-১ আসনে (এনএ ২০৭) বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পার্লামেন্ট সদস্য (এমপি) নির্বাচিত হয়েছেন মেয়ে আসিফা। তিনি পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) প্রার্থী ছিলেন।

পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর এই আসনটি ছেড়ে দিয়েছিলেন আসিফ আলি জারদারি। অবশেষে পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশন তাকে চূড়ান্তভাবে জয়ী ঘোষণা করেছে। এবারের উপনির্বাচনে মোট ১১ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। তাদের মধ্যে সাতজনের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়। আর তিনজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। তাই, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পার্লামেন্ট সদস্য হলেন আসিফা। এর আগে ২০২০ সালের ৩০ নভেম্বর মুলতানে প্রথমবারের মতো পিপিপির রাজনৈতিক সমাবেশে অংশ নেন আসিফা। চলতি বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি সাধারণ নির্বাচনের আগে পিপিপির হয়ে প্রচারে সরব ছিলেন তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ