শিরোনাম
ঢাকা-১৮ আসনকে স্মার্ট আসন হিসেবে গড়তে কাজ করে যাচ্ছি: খসরু চৌধুরী এমপি ড.কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম এলডিপির কার্যালয়ে জনগণের উদ্যেশে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণখানে রিকশাচালকদের মাঝে পানি বিতরণ করলেন খন্দকার সাজ্জাদ তীব্র তাপপ্রবাহে রিকশাচালকদের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ ১০ দিনে তুরাগ থানার পরিবর্তনের ছোঁয়া কালীগঞ্জের নাগরিতে সন্ত্রাসীদের তান্ডব উত্তরায় প্রকৌশলীকে পিটিয়ে হত্যা, মূল হোতা নাজমুল ধরাছোঁয়ার বাইরে উত্তরায় বফেট লঞ্চের শুভ উদ্বোধন উত্তরা ৪৭ নং ওয়ার্ড এ খন্দকার সাজ্জাদ হোসেনের ঈদের নামাজ আদায় উত্তরখানে খসরু চৌধুরী এমপির ঈদ উপহার বিতরণ
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ১১:৪৭ অপরাহ্ন

‘বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার জন্য বিশ্বে মাথা উঁচু করার জাতিতে পরিণত হয়েছি’

রিপোটারের নাম / ২৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ সাবেক মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এমপি বলেছেন, বিশ্বে আজ আমরা মাথা উঁচু করার জাতিতে পরিণত হয়েছি। জাতিসংঘের অধিবেশনে ১৯৭৪ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর বঙ্গবন্ধু ও ১৯৯৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলায় বক্তৃতা করার মধ্য দিয়ে আমাদের অর্জন শুরু হয়। ৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি আমরা মায়ের ভাষায় কথা বলার জন্য জীবন দিয়েছি।

১৯৯৬ সালে আমরা যখন রাষ্ট্রক্ষমতায় বাংলাভাষা আন্তর্জাতিক ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পায়। ওই সব অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকায় নিজেকে গর্বিত বলে মনে করেন প্রবীণ এই রাজনীতিবিদ।

ভোলায় বুধবার রাতে জেলা প্রশাসন আয়োজিত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও মহান একুশের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তোফায়েল আহমেদ।

তিনি বলেন, পৃথিবীর কম দেশ আছে যারা নিজের ভাষায় কথা বলার জন্য জীবন দিতে পারে। আমরা আমাদের মায়ের ভাষায় কথা বলার জন্য আমরা জীবন দিয়েছি। সেই শহিদদের শ্রদ্ধা জানান তোফায়েল আহমেদ। ১৯৯৬ সালে আমরা যখন রাষ্ট্রক্ষমতায় ছিলাম, তখন বাংলাভাষা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পায়। আমার সৌভাগ্য হয়ে ছিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে জাতিসংঘের অধিবেশনে যাওয়ার।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, বিশ্ব নেতাদের সামনে যখন আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলায় বক্তৃতা করলেন- তখন বিশ্ববরেণ্যরা প্রশংসিত করেন। তেমনি ১৯৭৪ সালে ২৫ সেপ্টেম্বর বঙ্গবন্ধু যখন বাংলায় বক্তৃতা করেন তখন বিশ্ব নেতারা জড়িয়ে ধরে আমাদের গর্বিত জাতি হিসেবে উল্লেখ করেন। সেই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

এ সময় জেলা প্রশাসক আরিফুজ্জামেনের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন- জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মমিন টুলু, পুলিশ সুপার মো. মাহিদুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, জেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম গোলদার। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলার বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তারা।

পরে কলেজ শিক্ষক আসমা আক্তার সাথীর উপস্থাপনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেয় শিল্পকলা ও শিশু একাডেমির শিল্পীরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ