শিরোনাম
ঢাকা-১৮ আসনকে স্মার্ট আসন হিসেবে গড়তে কাজ করে যাচ্ছি: খসরু চৌধুরী এমপি ড.কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম এলডিপির কার্যালয়ে জনগণের উদ্যেশে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণখানে রিকশাচালকদের মাঝে পানি বিতরণ করলেন খন্দকার সাজ্জাদ তীব্র তাপপ্রবাহে রিকশাচালকদের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ ১০ দিনে তুরাগ থানার পরিবর্তনের ছোঁয়া কালীগঞ্জের নাগরিতে সন্ত্রাসীদের তান্ডব উত্তরায় প্রকৌশলীকে পিটিয়ে হত্যা, মূল হোতা নাজমুল ধরাছোঁয়ার বাইরে উত্তরায় বফেট লঞ্চের শুভ উদ্বোধন উত্তরা ৪৭ নং ওয়ার্ড এ খন্দকার সাজ্জাদ হোসেনের ঈদের নামাজ আদায় উত্তরখানে খসরু চৌধুরী এমপির ঈদ উপহার বিতরণ
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৮:৩৮ অপরাহ্ন

প্রকৌশলীর শাস্তির দাবিতে রাজশাহী চিনিকলে শ্রমিকদের বিক্ষোভ

রিপোটারের নাম / ১৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : সোমবার, ১ এপ্রিল, ২০২৪

রাজশাহী চিনিকলের সহকারী ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী সামিউল ইসলামের শাস্তির দাবিতে শ্রমিকরা বিক্ষোভ-সমাবেশ করেছেন। সোমবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত তারা চিনিকলের প্রশাসনিক ভবনের সামনে এ কর্মসূচি পালন করেন।

উল্লেখ্য, গত ২৪ মার্চ এক শ্রমিকের কোয়ার্টারে পানির সমস্যার সমাধানের বিষয়ে চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী শ্রমিক ইউনিয়নের (সিবিএ) সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, প্রকৌশলী সামিউল ইসলামের সঙ্গে কথা বলতে যান। এ সময় উত্তেজিত হয়ে সিবিএ নেতা রফিকুলকে রড দিয়ে আঘাত করেন তিনি। শ্রমিকরাও এ সময় তাকে অবরুদ্ধ করে রাখেন।

এ ঘটনায় ওই প্রকৌশলীর কাছে কৈফিয়ত তলব করেছে কর্তৃপক্ষ। সিবিএ সভাপতি মাসুদ রানা ও সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলামের কাছেও কৈফিয়ত তলব করা হয়েছে। এ ছাড়া তিন কর্মচারীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

শ্রমিকদের অভিযোগ, চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আবুল বাশার শ্রমিকদের সঙ্গে পক্ষপাতিত্বমূলক আচরণ করছেন।

সোমবার আয়োজিত বিক্ষোভ-সমাবেশে বক্তব্যে সিবিএর সভাপতি মাসুদ রানা বলেন, প্রকৌশলী সামিউল ইসলাম পণ্যসেবা ও বার্ষিক বরাদ্দ খাতের অর্থ সংস্কার এবং মেরামতের নামে লুটপাট করছেন। এমডি আবুল বাশার তার কাছ থেকে সুবিধা নেন বলে সব কিছু জেনেও চুপ থাকেন। সমাবেশে মাসুদ রানা এই প্রকৌশলীকে দ্রুত অবসারণের দাবি জানান। তা না হলে আরও বৃহত্তর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলেও তিনি ঘোষণা দেন।

জানতে চাইলে চিনিকলের এমডি আবুল বাশার বলেন, আমরা চিনিকলের পক্ষ থেকে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করেছিলাম। সেই প্রতিবেদনের ভিত্তিতে তিনজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। প্রকৌশলীসহ তিনজনের কাছে কৈফিয়ত তলব করা হয়েছে। তারা এখনো জবাব দেননি। সদর দপ্তর থেকেও একটি কমিটি তদন্ত করা হয়েছে। সব কিছু বিবেচনার পর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষই এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ