শিরোনাম
ঢাকা-১৮ আসনকে স্মার্ট আসন হিসেবে গড়তে কাজ করে যাচ্ছি: খসরু চৌধুরী এমপি ড.কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম এলডিপির কার্যালয়ে জনগণের উদ্যেশে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণখানে রিকশাচালকদের মাঝে পানি বিতরণ করলেন খন্দকার সাজ্জাদ তীব্র তাপপ্রবাহে রিকশাচালকদের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ ১০ দিনে তুরাগ থানার পরিবর্তনের ছোঁয়া কালীগঞ্জের নাগরিতে সন্ত্রাসীদের তান্ডব উত্তরায় প্রকৌশলীকে পিটিয়ে হত্যা, মূল হোতা নাজমুল ধরাছোঁয়ার বাইরে উত্তরায় বফেট লঞ্চের শুভ উদ্বোধন উত্তরা ৪৭ নং ওয়ার্ড এ খন্দকার সাজ্জাদ হোসেনের ঈদের নামাজ আদায় উত্তরখানে খসরু চৌধুরী এমপির ঈদ উপহার বিতরণ
সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০১:২৫ অপরাহ্ন

নারীকে জোর করে মদ খাওয়ানোর চেষ্টা, সিপাহি ক্লোজড

রিপোটারের নাম / ৯৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৫ এপ্রিল, ২০২৪
Oplus_131072

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দরের এক কাস্টমস সিপাহির বিরুদ্ধে এক নারী পাসপোর্টধারী যাত্রীকে জোর করে মদ খাওয়ানোর চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ অভিযোগে রুবেলকে বৃহস্পতিবার ক্লোজড করেছে ঊর্ধ্বতন কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।
অভিযোগে জানা গেছে, গত বুধবার দুপুরে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলার জোগেন্দ্রনগর এলাকার বাসিন্দা সঞ্জিত সাহা, তার বোন ঐশি সাহা ও আরেক আত্মীয় বাংলাদেশে আসেন। তারা আখাউড়া ইমিগ্রেশন সম্পন্ন করে কাস্টমস তল্লাশি বা ব্যাগেজ স্কিনিং কক্ষে আসেন। ওই পাসপোর্টধারী যাত্রীদের ব্যাগ তল্লাশি করে দুটি মদের বোতল পাওয়া যায়। বোতল নিতে হলে টাকা দাবি করে ডিউটিরত কাস্টমস সিপাহি রুবেল। কিন্তু প্রত্যেক বিদেশি যাত্রী একটি করে মদের বোতল আনতে পারবেন— এমন নিয়মের চ্যালেঞ্জ করে বসে ভারতীয় ওই নাগরিক। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন কাস্টমসের সিপাহি রুবেল।

এরই মধ্যে রুবেল বলতে থাকেন— তারা মাদককারবারি। আর নিজের জন্য আনা হয়ে থাকলে এখনই মদের বোতল থেকে মদ খেতে হবে। উত্তেজিত রুবেল তখন মদের বোতল ভেঙে পানিতে মিশিয়ে ঐশিকে খেতে বলেন। ঐশি এতে বিব্রত হন। পরে তিনি প্রতিবাদ করেন। সঞ্জিতের কাছেও মদের গ্লাস নিয়ে যান রুবেল। তখন ভারতীয় ওই যাত্রীদের নানান রকম ভয়ভীতি দেখানো হয়। একপর্যায়ে ব্যাগে আরও কোনো পণ্য রয়েছে কিনা সেটিও তল্লাশি করতে থাকেন অভিযুক্ত সিপাহি।

এ বিষয়ে আখাউড়া স্থলশুল্ক স্টেশনের রাজস্ব কর্মকর্তা আব্দুল কাইয়ুম তালুকদার ওই সিপাহির ক্লোজড বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি যুগান্তরকে বলেন, বিষয়টি নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়। তাৎক্ষণিক বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করি। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে তাকে কুমিল্লা কাস্টমস কমিশনার কার্যালয়ে সংযুক্ত করেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ