শিরোনাম
ঢাকা-১৮ আসনকে স্মার্ট আসন হিসেবে গড়তে কাজ করে যাচ্ছি: খসরু চৌধুরী এমপি ড.কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম এলডিপির কার্যালয়ে জনগণের উদ্যেশে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণখানে রিকশাচালকদের মাঝে পানি বিতরণ করলেন খন্দকার সাজ্জাদ তীব্র তাপপ্রবাহে রিকশাচালকদের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ ১০ দিনে তুরাগ থানার পরিবর্তনের ছোঁয়া কালীগঞ্জের নাগরিতে সন্ত্রাসীদের তান্ডব উত্তরায় প্রকৌশলীকে পিটিয়ে হত্যা, মূল হোতা নাজমুল ধরাছোঁয়ার বাইরে উত্তরায় বফেট লঞ্চের শুভ উদ্বোধন উত্তরা ৪৭ নং ওয়ার্ড এ খন্দকার সাজ্জাদ হোসেনের ঈদের নামাজ আদায় উত্তরখানে খসরু চৌধুরী এমপির ঈদ উপহার বিতরণ
সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২:৪৫ অপরাহ্ন

ছাত্রলীগ ছাত্র রাজনীতির কলঙ্ক: এবি পার্টি

রিপোটারের নাম / ১৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বুধবার, ৩ এপ্রিল, ২০২৪

বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতি ও বুয়েট ক্যাম্পাস অস্থিতিশীল করার নিন্দা জানিয়ে ‘মানববন্ধন’ ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে আমার বাংলাদেশ পার্টি-এবি পার্টি। মানববন্ধন থেকে সরকারি ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগকে ছাত্র রাজনীতির কলঙ্ক এবং ক্যাম্পাসে সহিংসতার মূল নাটের গুরু হিসেবে অভিহিত করেছে দলের নেতারা।
আজ বিকেল ৪টায় রাজধানীর পল্টন-বিজয়নগর সড়কে এ মানববন্ধনের আয়োজন করে এবি পার্টি। দলের যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- বুয়েটের সাবেক শিক্ষার্থী প্রকৌশলী সিমাব ফাহিম, এবি পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক বিএম নাজমুল হক, সদস্যসচিব মজিবুর রহমান মঞ্জু, যুগ্ম সদস্যসচিব ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদ, অফিস সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল্লাহ আল মামুন রানা, প্রচার সম্পাদক আনোয়ার সাদাত টুটুল প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বুয়েট পরিস্থিতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, আবরার হত্যাকাণ্ডের সিসিটিভি ফুটেজ না পেলে জানা যেত না ছাত্রলীগের নেতারা কত ঠান্ডা মাথায় মানুষ খুন করতে পারে। পুরোনো ঢাকায় বিশ্বজিত নামক একজন দর্জিকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যায়ও ছাত্রলীগ নেতাদের চরিত্র প্রকাশ পায়।

বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ছাত্রলীগ মূলত ছাত্র রাজনীতির কলঙ্ক। তাদের খুন, ধর্ষণ, চাঁদাবাজির কারণে মানুষ ছাত্র রাজনীতির প্রতি বিরক্ত ও বীতশ্রদ্ধ হয়ে পড়েছে।

বুয়েটে সাধারণ শিক্ষার্থীদের চলমান ছাত্ররাজনীতির বিপক্ষে যে আন্দোলন তার সঙ্গে সংহতি জানিয়ে নেতারা বলেন, ক্যাম্পাসগুলো দখলে নিয়ে ছাত্রলীগ সবখানে পাক হানাদারদের মতো টর্চারসেল ও নারী নির্যাতন কক্ষ বানিয়ে রেখেছে, তারাই ক্যম্পাসে সহিংসতা ও জঙ্গিপনার নাটের গুরু। অতএব বুয়েট ক্যম্পাসে ছাত্রলীগের রাজনীতি ফিরিয়ে এনে শত শত মেধাবী ছাত্রের জীবনকে জিম্মি করতে দেওয়া যায় না। সমাবেশ থেকে বুয়েটের সাবেক সব শিক্ষার্থীদের একাত্ম হয়ে সাধারণ ছাত্রদের আন্দোলনে সমর্থন দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়।

সমাবেশ ও মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন- ঢাকা মহানগর উত্তরের আহবায়ক আলতাফ হোসাইন, ছাত্রপক্ষের আহবায়ক মোহাম্মদ প্রিন্স, মহানগর দক্ষিণের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল হালিম খোকন, যুগ্ম সদস্যসচিব সফিউল বাসার, আহমাদ বারকাজ নাসির, মহানগর উত্তরের সদস্যসচিব সেলিম খান, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আমেনা বেগম, রুনা হোসাইন, রিপন মাহমুদ, শরন চৌধুরী, সুমাইয়া শারমিন ফারহানা, মশিউর রহমান মিলুসহ কেন্দ্রীয় ও মহানগরীর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ