শিরোনাম
ঢাকা-১৮ আসনকে স্মার্ট আসন হিসেবে গড়তে কাজ করে যাচ্ছি: খসরু চৌধুরী এমপি ড.কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম এলডিপির কার্যালয়ে জনগণের উদ্যেশে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণখানে রিকশাচালকদের মাঝে পানি বিতরণ করলেন খন্দকার সাজ্জাদ তীব্র তাপপ্রবাহে রিকশাচালকদের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ ১০ দিনে তুরাগ থানার পরিবর্তনের ছোঁয়া কালীগঞ্জের নাগরিতে সন্ত্রাসীদের তান্ডব উত্তরায় প্রকৌশলীকে পিটিয়ে হত্যা, মূল হোতা নাজমুল ধরাছোঁয়ার বাইরে উত্তরায় বফেট লঞ্চের শুভ উদ্বোধন উত্তরা ৪৭ নং ওয়ার্ড এ খন্দকার সাজ্জাদ হোসেনের ঈদের নামাজ আদায় উত্তরখানে খসরু চৌধুরী এমপির ঈদ উপহার বিতরণ
শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১২:৫০ পূর্বাহ্ন

আর একফোঁটা পানিও যাবে না পাকিস্তানে

রিপোটারের নাম / ১৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

পাঞ্জাবের রাবি বা ইরাবতী নদীর পানি আর পাকিস্তানে যাবে না। একটি বাঁধের মাধ্যমে ভারত এই নদীর প্রবাহ পুরোপুরি আটকে দিয়েছে। এই বাঁধ প্রকল্পটি বিগত ৪৫ বছর ধরে চলছিল। অবশেষে তা সম্পন্ন হয়েছে এবং ইরাবতী নদীর পানির একফোঁটাও এখন আর পাকিস্তানে যাবে না।

১৯৬০ সিন্ধু পানিচুক্তি অনুযায়ী ইরাবতী নদীর পানির ১০০ শতাংশের ওপর অধিকার আছে শুধুমাত্র ভারতের।

বিশ্বব্যাংকের তদারকিতেই সেই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। তবে ৫৫.৫ মিটার উঁচু যে শাহপুর কান্দি ব্যারাজের মাধ্যমে ইরাবতীর পানি ধারণের কথা ছিল, তা দীর্ঘদিন থমকে ছিল।

পাঞ্জাবের পাঠানকোট জেলায় অবস্থিত এই পানি প্রকল্পটি আটকে ছিল জম্মু ও কাশ্মীর এবং পাঞ্জাবের মধ্যকার ঝামেলার জন্য। এর জেরেই ইরাবতী নদীর পানি এত বছর ধরে পাকিস্তানে পৌঁছে যাচ্ছিল।

রোববারের এই সিদ্ধান্তের ফলে জম্মু-কাশ্মীর এখন ১১৫০ কিউসেক পানি বেশি পাবে। যা এতদিন পাকিস্তান পাচ্ছিল। ১৯৬০ সালের ওই চুক্তি অনুযায়ী, ইরাবতী বা রাবি ছাড়াও শতদ্রু নদী বা শতলুজ এবং বিপাশা নদী বা বিয়াসের পানির ওপর ভারতের পূর্ণ অধিকার আছে। এদিকে পাকিস্তানের পূর্ণ অধিকার রয়েছে সিন্ধু, ঝিলাম এবং চেনবের ওপর।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ